বাজেট পড়ছেন প্রধানমন্ত্রী, মজাও করলেন

অর্থমন্ত্রী মুস্তফা কামাল বাজেট পেশ সম্পূর্ণ করতে পারেননি। তিনি অসুস্থতার কারণে কিছুটা বাজেট পড়ে সময় নিয়েছেন স্পিকারের কাছ থেকে।

কিন্তু তিনি আর যথারীতি শারীরিক অসুস্থতার কারণে বাজেট পড়া শুরু করতে পারেননি। পরবর্তীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাজেট পড়েন।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী মজা করে বলেন, ‘এখানে যেসব জায়গায় আমাকে ধন্যবাদ দেওয়া হয়েছে তা কিন্তু আমি ভুলে পড়ে ফেলছি। এটা অর্থমন্ত্রীর হয়ে আমি পড়ছি।’

আগামী ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট উত্থাপন করা হয়েছে জাতীয় সংসদে। মূল বাজেটের আকার ধরা হয়েছে ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকা। এটি জিডিপির ১৮ দশমিক ১ শতাংশ।

এবারের বাজেটে সর্বোচ্চ অর্থ ধরা হয়েছে যোগাযোগ ও পরিবহন খাতে। ৬৪ হাজার ৮ শত ২০ কোটি টাকা যোগাযোগ ও সড়ক পরিবহন খাতে ধার্য্য করা হয়েছে। বাজেটে দ্বিতীয় ব্যয় ধরা হয়েছে অভ্যন্তরীন সুদ পরিশোধে ৫৭ হাজার ৬৮ কোটি টাকা। বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে বরাদ্দ করা হয়েছে ২৮ হাজার ৫০ কোটি টাকা। প্রতিরক্ষা খাতে ৩২ হাজার ৫৫৮ কোটি টাকা। স্বাস্থ্যখাতে ২৫ হাজার ৭৩২ কোটি টাকা। কৃষিখাতে ২৮ হাজার ৩৫৩ কোটি টাকা বরাদ্দ ধরা হয়েছে।

উল্লেখ্য, রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৩ লাখ ৭৭ হাজার ৮১০ কোটি টাকা। এর মধ্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের মাধ্যমে আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৩ লাখ ২৫ হাজার ৬০০ কোটি টাকা, যা জিডিপির ১১ শতাংশ। এনবিআর বর্হিভূত রাজস্ব আয় ১৪ হাজার ৫০০ কোটি টাকা, যা জিডিপির ৫ শতাংশ। আর কর বর্হিভূত রাজস্ব আয় ৩৭ হাজার ৭১০ কোটি টাকা । এটি জিডিপির ১ দশমিক ৩ শতাংশ।