সবজি বিক্রি করে জীবন চালাচ্ছেন ২ বারের ইউপি চেয়ারম্যান

স্বার্থপর রাজনীতিবিদদের মাঝে খাঁটি রাজনীতিবিদ মেলা বেশ দুষ্কর। দু’একজন যে ব্যতিক্রম থাকেন না তা কিন্তু নয়।

এরকমই এক ব্যতিক্রমী রাজনীতিবিদ চাঁপাইনবাবগঞ্জ জে'লার ভোলাহাট উপজে'লার গোহালবাড়ী ইউনিয়নে দুইবারে সাড়ে ৮ বছরের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ।

বিদায়ী এ চেয়ারম্যান হাঁটছেন স্রোতের বিপরীতে। সবজি বিক্রি করে জীবন যাপন করেন সাবেক এই চেয়ারম্যান।

সম্প্রতি যখন রাজনীতিবিদদের অফিস, কার্যালয়, বাসা, বাড়িতে শতশত কোটি টাকা, স্বর্ণালংকার পাওয়া যাচ্ছে তখন এমন খবর বেমানান ও অবিশ্বা'স্যও বটে। কিন্তু এই অবিশ্বা'স্য কা'ণ্ড ঘটিয়েছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জে'লার ভোলাহাট উপজে'লার গোহালবাড়ী ইউনিয়নে দুইবারে সাড়ে ৮ বছরের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ। তিনি এখন সবজি ব‍্যবসা করে জীবিকা নির্বাহ করেণ। তার কাছে শিক্ষা নেয়া উচিৎ রাজনীতিবিদদের। এমন কাজে পরিচিতজনরা দেখে বিস্মিত হলেও অনেকেই স্বাগতও জানাচ্ছেন।

সাবেক এই চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ বলেন, গোহালবাড়ী ইউনিয়নে ২০০৩ সাল হতে ২০১১ সাল পর্যন্ত মোট সাড়ে ৮ বছরের চেয়ারম্যান ছিলাম।

এতো সময় চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেছেন, চেয়ারম্যান মেম্বারেরা লাখোপতি-কোটিপতি হয়ে যায়, তাহলে আপনি সবজি বিক্রি করছেন কেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমানতের খেয়ানত করা যাবে না। আমানতের খেয়ানত করলে আল্লাহ ছাড়বে না। আমাকে একদিন ম'রতে হবে। সরকারি সম্পদ যা আসতো তা সবই জনগণের মাঝে সুষ্ঠু বন্টন করে দিয়েছি। আমি এখন তরকারি বিক্রি করছি এ থেকে যা আয় হয় এদিয়েই সংসার চলে।

অন্য চেয়ারম্যান মেম্বারদের উদ্দেশ্যে কিছু বলবেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, তাদের উদ্দেশ্যে আমা'র কিছুই বলার নাই। কারণ কে বা কাহারা কি করছে এটা আমা'র দেখার বিষয় না। আমাকে ম'রতে হবে, একাই কবরে যেতে হবে, একাই জবাবদিহি করতে হবে। আমি একারই কথা বলব।

তাদের ভালো কিছু পরাম'র্শ আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ভালো কিছু পরাম'র্শ দরকার হলে সে নিজে এসেই পরাম'র্শ নিবে। যে আমি ভালো কিছু করবো কি করলে ভালো হবে পরাম'র্শ দেন। এটা যদি সে না বলে ততদিন পর্যন্ত তাকে কোন কথা বলা যাবে না। তাহলে ভুল হবে আমা'র। আগামীতেও চেয়ারম্যান হওয়ার জন্য চেষ্টা করবেন তিনি।

সাধারণ মানুষ আপনাকে কিভাবে দেখছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মানুষে বলে এই সালায় কিছুই করে নি, সালায় শুধু দিয়েই দেয়। সালায় কিছুই করল না, সালায় শুধু দিয়েই দিল।