বাঁক নিয়ে অ’তি ভ’য়’ঙ্কর রুপে বাংলাদেশে আছড়ে পড়ছে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল

পশ্চিমবঙ্গের সাগরদ্বীপ এবং বাংলাদেশের সাতক্ষীরা দিকে বাঁক নিয়েছে অ’তি ভ’য়’ঙ্ক’র ঘূর্ণিঝড় বুলবুল।

তার আকার আরও বড়।

ঘন্টায় ১০০-১২০ কিলোমিটার গতিতে আ’ছ’ড়ে পড়বে বুলবুল।

শনিবার দুপুর দুটো নাগাদ ওড়িশার পারাদ্বীপ থেকে দূরত্ব বাড়িয়ে তা ক্রমশই গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের দিকে এগোচ্ছিল।

আবহাওয়া বিজ্ঞানীদের অনুমান, শনিবার রাত ৮টা থেকে ১২টার মধ্যে অ’তি ঘূর্ণিঝড়টি আ’ছ’ড়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

ভারতের আবহবিজ্ঞান বিভাগের ঘূর্ণিঝড় বিভাগের প্রধান বিজ্ঞানী মৃ’ত্যুঞ্জয় মহাপাত্র বলেন, “এই ধরনের ঘুর্ণিঝড় অনেকটা জায়গা জুড়ে আ’ঘা’ত হানে। বুলবুলও অনেকটা জায়গা নিয়ে পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশের উপকূলে আ’ছ’ড়ে পড়বে। এখনও পর্যন্ত যা গতি প্রকৃতি বোঝা যাচ্ছে, তাতে মনে হচ্ছে সুন্দরবন এবং তার আশপাশেই বুলবুলের আছড়ে পড়বে।”

এদিকে, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের অগ্রবর্তী অংশ সুন্দরবনের দুবলার চর এলাকায় আ’ঘা’ত হা’ন’তে শুরু করেছে। দুবলার মাঝেরচর থেকে জে’লেরা মোবাইল ফোনে জানিয়েছেন, শনিবার দুপুর ১২টার দিকে ৬০ থেকে ৭০ কিলোমিটার বেগে ১০/১৫মিনিট ব্যাপী ঝড়োবাতাস বয়ে গেছে।

দুবলা ফিশার মেন গ্রুপের হিসাব রক্ষক ফরিদ আহমেদ, ২০০৭ সালের ১৫ নভেম্বর দুপুরে সিডর এভাবেই প্রথমে আ’ঘা’ত হা’নে এবং বিকাল থেকে তা প্রায় ২০০ কিলোমিটার গতিবেগে দুবলার চরের জে’লে পল্লী গুলো ত’ছ’ন’ছ করে দেয়। সিডরের মতই বুলবুলের গতি প্রকৃতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে।