বুড়িগঙ্গায় লঞ্চডুবি নিয়ে শোকাহত মুশফিক ও রুবেল যা বললেন

সোমবার সকালে বুড়িগঙ্গা নদীতে ঘটে গেছে এক ম’র্মান্তিক দু’র্ঘটনা। মুন্সীগঞ্জ থেকে ঢাকায় আসার পথে বড় লঞ্চের ধাক্কায় ডুবে গেছে ম'র্নিং বার্ড নামের যাত্রিবাহী ছোট লঞ্চ। এ দুর্ঘ'টনায় এখনও পর্যন্ত অন্তত ৩২ জনের প্রা’ণহানি ঘটেছে।

করো'নাভাই'রাসের এ সংকটময় সময়ের মাঝে আবার লঞ্চডুবির ঘটনা গোটা দেশকে শোকের সাগরে নিমজ্জিত করেছে। বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের তারকা খেলোয়াড় মুশফিকুর রহীমের মতে, এ বছরটা একদমই ভালো নয়। বুড়িগঙ্গায় লঞ্চডুবির ঘটনায় শোকপ্রকাশ করে কথা লিখেছেন তিনি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে মুশফিক লিখেছেন, বুড়িগঙ্গা নদীতে লঞ্চডুবির ঘটনায় নিরীহ মানুষদের প্রা'ণহানিতে আমি হতবাক ও শোকাহত। ই’ন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। এখনও পর্যন্ত ভালো বছর নয়।

এ ঘটনায় শোকাহত জাতীয় দলের ডানহাতি পেসার রুবেল হোসেনও। তিনি লিখেছেন, এসেছিলো স্বপ্নের নগরীতে বেঁচে থাকার আশায়। কে জানত নিজেরাই চলে যাবে স্বপ্নপুরীতে।

অ'ত্যন্ত হৃদয় বিদারক ম’র্মান্তিক একটি দু’র্ঘটনা বুড়িগঙ্গায় লঞ্চডুবিতে নি'হত সকলের আত্মা'র মাগফেরাত কামনা করছি। হে মহান আল্লাহ আপনি সকল নি'হতের পরিবারকে এই শোক সামলে ওঠার শক্তি দান করুন। আমিন।

এর আগে রাতে বুড়িগঙ্গা নদীতে লঞ্চডুবির ঘটনা জানতে পেরে এ বিষয়ে নাতীদীর্ঘ এক বিবৃতি দিয়েছেন সাকিব। যেখানে তিনি লিখেছেন, প্রতিটি শোক সংবাদ হতাশার বেদনার। গত চারমাস ধরে করোনায় আ’ক্রান্ত হয়ে প্রতিদিনই মানুষ চলে যাচ্ছে না ফেরার দেশে।

এর মধ্যে আজ আবার বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে লঞ্চ ডুবে এখন পর্যন্ত ৩২ জন মানুষের প্রা’ণহানী এবং এখন পর্যন্ত বেশ কিছু যাত্রী নিঁখোজ রয়েছে। তাদের স্বজনদের আহাজারিতে ভা'রী হয়ে উঠছে চারপাশ। সত্যি বলতে আমি কোন ভাবেই নিজেকে স্বান্তনা দিতে পারছি না।

পুরো পৃথিবীর এই ভয়ংকর ক্রান্তিকালে এমন দূ’র্ঘটনার কোন স্বান্তনা বা ব্যাখ্যা আমা'র জানা নেই। ভব্যিষতে এমন অনাকাঙ্খিত দূর্ঘটনা আর একটি যেন না হয় এমন বাংলাদেশ দেকখা প্রত্যাশা করি। করোনা সব সকল দূর্যোগ কে'টে যাবে ইনশাআল্লাহ।

মাত্র ৩০ সেকেন্ড দূরের পথে থেকেও, সারাজীবনের জন্য পরোপারে পাড়ি জমানো সকল আত্বার প্রতি শান্তি ও সৃষ্টিক'র্তার নিকট জান্নাত কামনা করছি।