Thursday , April 26 2018
Breaking News

যে কারণে ধোনির ব্যাটই এখন বিশ্বের সবচেয়ে দামি ব্যাট!

২০১১ সালের বিশ্বকাপ ফাইনালের সেই মুহূর্ত সবারই মনে আছে। নুয়ান কুলশেকারাকে গ্যালারিতে পাঠিয়ে মহেন্দ্র সিং ধোনি ২৮ বছর পর ভারতকে বিশ্বকাপ জয়ের আনন্দে ভাসান।এর আগে ১৯৮৩ সালে কপিলদেবের হাতে ধরে প্রথম বারের মতো বিশ্বকাপ জিতেছিল ভারত। যদিও সেই ট্রফি জয়কে বলা হয় বিশ্বকাপ ক্রিকেটের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় দূর্ঘটনা।সেই সময়ের দুর্দমনীয় ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে অবিশ্বাস্য এক জয়ে শিরোপা জিতে কপিলের ভারত।

মাঝে ২০০৩ সালে সৌরভ গাঙ্গুলির নেতৃত্বে দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে ভারত পৌঁছেছিল বিশ্বকাপ ফাইনালে। কিন্তু সেবার ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার কাছে শোচনীয় পরাজয় বরণ করে ভারত। তখনও অবশ্য ধোনির আবির্ভাব ঘটেনি ভারতীয় ক্রিকেটে। তার চার বছর বাদে ওয়েস্ট ইন্ডিজে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে মাহিকে খেলতে দেখা গিয়েছিল।

২০০৭-এ ভরাডুবি ঘটেছিল ভারতের। রাতের অন্ধকারে পুলিশি বেষ্টনিতে দেশে ফিরতে হয়েছিল ভারতকে।অধিনায়কত্ব হারায় ‘দ্যা ওয়াল’ খ্যাত রাহুল দ্রাবিড়। নেতৃত্বের আর্মব্যান্ড যায় ধোনীর হাতে। এরপর থেকে আবারো ঘুড়ে দাঁড়ায় ভারত। দেশের মাটিতে অনুষ্ঠিত ২০১১ বিশ্বকাপে ধোনি ভারতীয়দের স্বপ্ন সফল করেছিলেন। ফাইনালে ধোনির ব্যাট থেকে এসেছিল অসম্ভব দামি একটা ইনিংস। সেই ব্যাটই এখন বিশ্বের সবচেয়ে দামি ব্যাট।

ধোনি
২০১১ বিশ্বকাপের পরে ধোনির সেই বিশ্বকাপ জেতানো ব্যাট লন্ডনে সমাজসেবামূলক অনুষ্ঠানে বিক্রি হয়েছিল ১,০০,০০০ পাউন্ডে। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ প্রায় ১ কোটি ১১ লক্ষ টাকা। ২০১১ সালে ধোনির সেই ব্যাট কিনেছিল আরকে গ্লোবাল শেয়ার্স অ্যান্ড সিকিউরিটিজ লিমিটেড (ইন্ডিয়া)। বর্তমানে ধোনির সেই আগের আগ্রাসন আর নেই। তবুও তিনিই যেন ভারতের অঘোষিত নেতা। বিরাট কোহলির সাজঘরে ধোনিই ‘অমূল্য রত্ন’। দরকারের সময়ে ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেন। এমন একজন ‘টিমম্যান’ তো যে কোনও দলেরই সম্পদ।