Thursday , April 26 2018

কে এই ক্রিকেটার যে বাংলাদেশ, শ্রীলংকা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ কে টেষ্ট ক্রিকেট থেকে বাদ দেয়ার পরিকল্পনা প্রকাশ করলেন

কিছুদিন আগে ভারতীয় দলের দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে ভারতীয় হেড কোচ রবি শাস্ত্রী উপরের সারির টেস্ট দলের মধ্যে ম্যাচের সংখ্যা বাড়ানোর কথা বলেছিলেন। টেস্ট ক্রিকেটকে বাঁচাতে হলে বড় টেস্ট খেলুড়ে দেশের মধ্যে বেশি বেশি প্রতিযোগিতা পূর্ণ টেস্ট ম্যাচের আয়োজন করার প্রস্তাব দিয়েছিলেন শাস্ত্রী।

এবার একই সুরে কথা বললেন দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক কিংবদন্তী শন পোলক। আগামী এক দশকের মধ্যে টেস্ট খেলুড়ে দেশের সংখ্যা বর্তমানের তুলনায় অর্ধেকে নেমে আসবে বলে ধারনা পোলকের। বেশি দলের মধ্যে টেস্ট ক্রিকেট না খেলে প্রতিদ্বন্দ্বিতা পূর্ণ ক্রিকেট টেস্ট ক্রিকেটকে বাঁচিয়ে রাখতে পারে বলে ধারনা এই প্রোটিয়া লিজেন্ডের।

সুপার স্পোর্টসের এক আলোচনা অনুষ্ঠানে তিনি বলেছেন, ‘আমার কাছে মনে হয় আগামী পাঁচ-দশ বছরে মাত্র ছয় দল টেস্ট ম্যাচ খেলতে চাইবে। আমি ব্যক্তিগতভাবে এতে সমস্যা দেখছি না। এই ছয় দলের মধ্যে যদি প্রতিযোগিতাপূর্ণ খেলা হয়, তাহলে আমি কোন সমস্যা দেখি না। কিছু দল আছে যারা টেস্ট ম্যাচ খেলে অনেক আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়ে। অনেক বোর্ড তো টেস্ট ম্যাচ খেলতেই চায় না। আর অনেক দেশের আজকালকার ছেলে মেয়েরাও টেস্ট খেলতে চায় না।

সুতরাং আমাদের যদি ছয়টি দল টেস্ট ম্যাচ খেলার জন্য মুখিয়ে থাকে এবং প্রতিদ্বন্দ্বিতা পূর্ণ ক্রিকেট উপহার দিতে পারে, তখন তিন দলে ভাগ হয়ে টেস্ট চাম্পিয়নশিপ আয়োজন করা যায়। আমার মনে হয় না আফগানিস্তান ও আয়ারল্যান্ডকে টেস্ট ম্যাচ খেলার সুযোগ দিয়ে খুব একটা বুদ্ধিমানের কাজ হবে। বেশি দল টেস্ট ক্রিকেট খেললেই টেস্ট ক্রিকেট বেঁচে থাকবে, এমন কিন্তু নয়। ওই ম্যাচ গুলোতে কেমন খেলা হচ্ছে সেটাই বেশি গুরুত্বপূর্ণ।’

পোলকের ভাষ্য মতে, উপরের সারির টেস্ট দলের মধ্যে প্রতিযোগিতা পূর্ণ ক্রিকেটই টেস্ট ক্রিকেটকে বাঁচিয়ে রাখতে পারে। বাংলাদেশ, ওয়েস্ট ইন্ডীজ, শ্রীলঙ্কা এমনকি জিম্বাবুয়ে, আয়ারল্যান্ড ও আফগানিস্তানের মত দেশের সাথে নির্বিষ টেস্ট ম্যাচ সার্বিকভাবে টেস্ট ক্রিকেটের জন্য ভালো বিজ্ঞাপন নয়।

একই সাথে আর্থিক দিক বিবেচনা করে নিচু সারির টেস্ট দল গুলো টেস্ট ক্রিকেট থেকে মুখ ফিরিয়ে নিবে বলে ধারনা দক্ষিণ আফ্রিকার এই সাবেক অধিনায়ক শন পোলকের।