Monday , April 23 2018

ঢাকা লিগের ‘সুপার হিরো’ মাশরাফি

১৬ ম্যাচে ৩৯ উইকেট নিয়ে সদ্য সমাপ্ত ঢাকা লিগের সেরা বোলার মাশরাফি বিন মর্তুজা। দুই নম্বরে থাকা বোলার নিয়েছেন ২৯ উইকেট। মাশরাফি যে কতো বড় ব্যবধানে সেরা বোলার হয়েছেন, তা নিশ্চয় বোঝা যাচ্ছে এতেই! পুরো আসরে মাশরাফি যেভাবে পারফর্ম করেছেন, তাতে তাকে ঢাকা লিগের ‘সুপার হিরো’ বললে মোটেও বাড়িয়ে বলা হবে না।

একজন বোলার তো উইকেট পাবেনই— এ কথা বলে হয়তো অনেকে মাশরাফির কীর্তিকে সাধারণ হিসেবে দেখতে পারেন। কিন্তু তারা যখন জানবেন, ৩৪ বছর পেরোনো একজন পেসারের জন্য প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেট খেলে যাওয়াই কঠিন। তখন নিশ্চয় বোঝা যাবে মাশরাফির কীর্তির মহিমা।

তারপরও যদি কারো কাছে মাশরাফির কীর্তিকে ছোট মনে হয়, তাহলে তাদের জন্য তথ্য হলো— ঢাকা লিগের এক মৌসুমে (লিস্ট-এর’র স্বীকৃতির পর) এতো উইকেট নেয়ার নজির নেই আর কারো। অর্থাৎ ৩৯ উইকেট নিয়ে নতুন রেকর্ডই গড়েছেন তিনি এবং সেটা ক্যারিয়ারের সায়াহ্নে এসে।

ঢাকা লিগে আবাহনীর খেলা ১৬ ম্যাচের সবগুলোই খেলেছেন মাশরাফি। এই ১৬ ম্যাচের দুটিতে ইনিংসে পাঁচ বা এর চেয়ে বেশি উইকেট তিনি নিয়েছেন দুইবার। দুইবার নিয়েছেন চারটি করে। এর মধ্যে এক ম্যাচে করেছেন হ্যাটট্রিকও। প্রতিটি ম্যাচেই তার বোলিংয়ে ঠিকরে বেরিয়ে তরুণ্যের অসাধারণ দ্যুতি। অথচ, যেটা আগেই বলা হলো, এই বয়সে এসে ক্রিকেট খেলাই ছেড়ে দেন বহু ক্রিকেটার।

এই বয়সে এমন পারফর্সের রহস্য কী— আবাহনীকে চ্যাম্পিয়ন করার পর সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হলে এমন প্রশ্ন যায় মাশরাফির কাছে। উত্তরে তিনি বলেন, ‘রহস্য কিছুই নয়! এখন যেহেতু আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছি না, তাই পুরো মনোযোগ ছিলো লিগে। নিয়মিত জিম, অনুশীলন করেছি। খাওয়া-দাওয়ার ব্যাপারগুলোও ঠিকঠাক করেছি।’

মাশরাফি আরো বলেন, ‘আমার কাছে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ছিলো, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে যেমন খেলছিলাম, তা ধরে রাখা। উইকেট নিতেই হবে— এমন কোনো চিন্তা ছিলো না। আমি বরং ফিটনেসের উপর সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়েছি। ফিটনেসে যেনো কোনো ঘাটতি তৈরি না হয়, তা নিশ্চিত করতে চেয়েছি।’

mashrafe
ফিটনেস ঠিক রাখতে হবে— এই বার্তা কেবল নিজের মনোজগতে ছড়িয়ে দিয়েই ক্ষান্ত হননি মাশরাফি। তিনি বরং ফিটনেস নিয়ে বিশেষ গুরুত্ব দেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন আরো অনেককে। এদের মধ্যে আছেন মোহাম্মদ আশরাফুলও। তার পরামর্শ মেনে আশরাফুল টানা তিন ম্যাচে সেঞ্চুরি করে অবাক করে দিয়েছেন সবাইকে।

১৬ ম্যাচে ৩৯ উইকেট নেয়ার কীর্তিটা যে কোনো পর্যায়ে যে কোনো বোলারের জন্যই স্বপ্নের মতো পারফর্ম। সেই পারফর্ম যদি আসে ৩৪ বছর বয়সে, যখন একজন পেসার খেলা ছেড়ে দেন বা ছেড়ে দেয়ার ভাবনায় ডুবে থাকেন, তাহলে তো কথাই নেই। এমন পারফর্ম করা মাশরাফিকে ‘সুপার হিরো’ বলা সত্যিই বাড়াবাড়ি নয়!