Thursday , April 26 2018
Breaking News

আইপিএলে বাহাতি বোলারদের রাজত্ব

একদিন পরই শুরু হতে যাচ্ছে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল)। চুল ছেড়া বিশ্লেষণ শুরু হয়ে গেছে প্রত্যেকটা দল নিয়ে। শুধু দল নিয়ে বললে ভুল হবে প্রত্যেকটা বিভাগ নিয়ে; বোলিং, ব্যাটিং ও ফিল্ডিং।তবে গত দশ আসরের আইপিএল অভিজ্ঞতা বলে ভারতের এই জমজমাট আসরে সবচেয়ে বেশি কদর বাহাতি পেস বোলারদের।পরিসংখ্যানে দেখা গেছে দল গুলোর শিরোপা জয়ে বাহাতি পেসারদের অবদান বেশি।

প্রথম আসরে পাকিস্তানি সোহেল তানভীরের কথা সবারই জানা। রাজস্থানের শিরোপা জয়ে সবচেয়ে বড় অবদান ছিলো এই বোলারের।ভারতীয় জহির খান ও আশিষ নেহারার ঝুলিতে গেছে ১০০+ উইকেট। ২০১৬ সালে হায়দরাবাদের শিরাপা জয়ে ছিলো বাংলাদেশি মোস্তাফিজের অনেক বড় অবদান। এছাড়া মুম্বাইয়ে মিচেল ম্যাকক্লেনাগান।আসন্ন আইপিএলে রয়েছে বেশ কিছু বিশ্বমানের বাহাতি পেসার।

জয়দেব উনাদকাট: আইপিএলের একাদশ আসরের সবচেয়ে বড় চমক ভারতের এই বাহাতি পেসার। রেকর্ড সাড়ে ১১ কোটি রুপিতে তাকে দলে ভেড়ায় রাজস্থান রয়্যালস। আইপিএলে ৪৭ ম্যাচে তার দখলে গেছে ৫৬ উইকেট বোলিং গড় ২৩.২৫। প্রসঙ্গত, দুই বছর পরে আইপিএলে ফিরে ব্যয়বহুল দল গঠন করেছে রাজস্থান।

মোস্তাফিজুর রহমান: আইপিএল তথা টি-২০ ক্রিকেটের বড় নাম বাংলাদেশি কাটার মাষ্টার মোস্তাফিজুর রহমান। গত দুই আসরে হায়দরাবাদের হয়ে খেললেও এবার মোস্তাফিজের ঠিকানা গত আসরের চ্যাম্পিয়ন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স।২০১৬ সালে ১৬ ম্যাচে ১৭ উইকেট শিকার হয়ে হয়েছেন আইপিএলের সেরা উদীয়মান খেলোয়ার। স্লগ ওভারে কার্যকর এই বোলারকে দলে ভিড়িয়ে মুম্বাই চাইছে টানা দ্বিতীয় বারের মতো শিরোপা ঘরে তুলতে।

মিচেল ম্যাকক্লেনাগান: টি-২০ স্পেশালিস্ট বোলার হিসেবে তার খ্যাতি। গত কয়েক আসর ধরে মুম্বাইয়ে হয়ে মাঠ মাতাচ্ছেন এই কিউই পেসার। সর্বশেষ আসরে ১৪ ম্যাচে তার শিকার ১৯ উইকেট।

টেন্ট্র বোল্ট: কলকাতা নাইট রাউডার্স দিয়ে আইপিএল যাত্রা শুরু। এরপর হায়দারাবাদে যোগ দিলেও ২০১৬ সালে মোস্তাফিজের কারনে খুব একটা দলে সুযোগ হয়নি এই গতি তারকার। তবে চলমান আসরে সাবেক সতীর্থ গৌতম গম্ভিরের সাথে নতুন দল দিল্লিতে যোগ দিয়েছেন তিনি।

এছাড়া অস্ট্রেলিয়ার মিচেল জনসন ও মিচেল স্টার্ক ভারতীয় ইরফান পাঠান, আরপি সিং আইপিএলে দূর্দান্ত পারফরম্যান্স করেছেন। যার ফলে চলমান আইপিএলে দল গুলোর ভাগ্য নির্ধারন করতে পারে বাহাতি পেসাররা।-ক্রিক ট্যা.